ডুবে গেছে রাজধানী ঢাকা

0
31

টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত রাজধানীর জনজীবন। বৃষ্টির কারণে রাজধানীর প্রায় অধিকাংশ সড়ক পানিতে ডুবে গেছে। ঘর থেকে বের হয়েই পড়তে হয়েছে দুর্ভোগে। যানবাহনের সংকটের কারণে অনেকেই হেঁটে রওনা দেন কর্মস্থলের দিকে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা তাদের বসে থাকতে হয়েছে জলাবদ্ধ রাস্তায়। ছিল না পর্যাপ্ত গণপরিবহন। আবার কোথাও কোথাও মিললেও, তাতে উঠতে রীতিমত যুদ্ধে নামতে হয়েছে অসহায় নগরবাসীকে। ফুটপাতসহ বেশির ভাগ এলাকা তলিয়ে যাওয়ায় অফিসগামী মানুষের পাশাপাশি ুদ্র ব্যবসায়ীরাও পড়েন বিপাকে। রাস্তায় পানি জমায় অফিসগামীদের গাড়িতে ওঠা-নামার সময় পড়তে হয়েছে বিড়ম্বনায়। ফুটপাতে পানি জমায় জুতা খুলে কাপড় গুছিয়ে হাঁটতে দেখা গেছে পথচারীদের। আবার অনেকে রিকশায় পার হচ্ছেন রাস্তা। এছাড়া রিকশাও অর্ধেকের বেশি পানির নিচে ডুবে গেছে। এমনটাই ছিল গতকাল বুধবার রাজধানীর চিত্র। : এ দুর্ভোগের জন্য চরম অব্যস্থাপনাকেই দুষছেন নাগরিকরা। এমনিতেই বৃষ্টি হলে নগরবাসীর দুর্ভোগের সীমা থাকে না। এর মধ্যে শুরু হয়েছে টানা বর্ষণ। এটি যেন নগরবাসীর জীবনে দুর্ভোগের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। রাজধানীর মতিঝিল, পল্টন,  দৈনিক বাংলা, কমলাপুর এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কমপে তিন থেকে চার ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে এসব এলাকার রাস্তা। খোদ বাংলাদেশ ব্যাংকের ভেতরে দুই ফুট পানি জমে গেছে। : আরও তলিয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ধানমন্ডি, শেওড়াপাড়া, মিরপুর, তেজগাঁও, আজিমপুর, মগবাজার, মালিবাগ, মৌচাক, শান্তিনগর, রামপুরা, বাড্ডা, মোহাম্মদপুর, নাখালপাড়া, কাওরানবাজার, ঝিগাতলা, ট্যানারি মোড়, যাত্রাবাড়ি, কুড়িল, ভাটারা এলাকায় রাস্তায় পানি জমে থাকায় দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে জনগণকে। রাজধানীর খাল ও ড্রেন থেকে ময়লা সরিয়ে পানি চলাচলের পথ তৈরিতে কাজ করছে সিটি কর্পোরেশন ও ঢাকা ওয়াসা। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা ভালো না থাকায় জমে থাকা পানি মাড়িয়েই চলাচল করছেন নগরবাসী। গর্ত-ড্রেন-ম্যানহোলসহ বিভিন্ন স্থানে পথচারীরা পড়ে নয়তো রিকশা উল্টে প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোটখাট দুর্ঘটনা। অনেকেই ভেজা পোশাক নিয়ে অফিসে প্রবেশ করেন। অফিস শেষে বিকেলে বাসায় ফেরার সময়ও বিড়ম্বনায় পড়তে হয় অনেককে। টানা বৃষ্টিতে সৃষ্টি হওয়া জলজটের মধ্যে যানজটে অতিষ্ঠ নগরবাসী। সময়মতো স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত ও বিভিন্ন গন্তব্যে পৌঁছতে না পারায় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে দেখা গেছে রাজধানীবাসীকে। নগরীর প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে অলিগলিতে জমেছে হাঁটু পানি। এদিকে বৃষ্টির পাশাপাশি যানজট ভোগান্তির মাত্রা বাড়িয়েছে আরও কয়েকগুণ। সকাল সাতটা থেকেই রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও ধানমন্ডি এলাকা ছিল যানজটের কবলে। ওই সব এলাকার স্কুল-কলেজের শিার্থীদের বহনকারী ব্যক্তিগত গাড়ির চাপে স্থবির হয়ে পড়ে সড়কগুলো। কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিপাতে দেশের প্রশাসনিক প্রাণকেন্দ্র বাংলাদেশ সচিবালয়ে গতকাল বুধবার সকালে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে সচিবালয়ের ভেতরের নিচু জায়গাগুলোতে পানি জমে যায়। বৃষ্টির পানি জমে গতকাল সকালে পুরো সচিবালয়ই কার্যত পানিবন্দি হয়ে পড়ে। পানির কারণে সাত নম্বর ভবনের একটি লিফট প্রথমে বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে পানি বাড়ায় অধিকাংশ লিফট বন্ধ হয়ে পড়ে।

এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও দর্শনার্থীরা। : সরেজমিনে সকালে দেখা গেছে, সচিবালয়ের প্রধান গেটের বাইরে ও ভেতরে হাঁটু পানি জমে রয়েছে। এতে বাসে বা অন্য কোনো গাড়ি করে কর্মকর্তা-কর্মচারী ও দর্শনার্থীরা জুতা-মোজা পরে আসলেও সচিবালয়ে প্রবেশের সময় জুতা-মোজা খুলে হাতে করে নিতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়, এক ভবন থেকে আরেক ভবনে যেতে বিড়ম্ব^নায় পড়তে হয়েছে। তবে অনেককেই সংযোগ বারান্দা ব্যবহার করে এক ভবন থেকে আরেক ভবনে যেতে দেখা গেছে। : সচিবালয় ঘুরে দেখা গেছে, সকাল থেকে বৃষ্টির কারণে ২০তলা ভবনের সামনে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। অর্থ, শিা, প্রাথমিক শিা, পরিবেশ ও বন, সমাজকল্যাণ, নৌপরিবহন, বিমানসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের গাড়ি রাখার স্থানেও জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। গাড়ি রাখার এ স্থানটিতে হাঁটু পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। গণপূর্ত অধিদফতর জানিয়েছে, সচিবালয়ের আশপাশের সড়কগুলো থেকে পানি নিষ্কাশনের পথ নেই। এ কারণে সচিবালয়ের পানি নিষ্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। : শ্রাবণের ঢলে বাণিজ্যিক ও অফিসপাড়া হিসেবে পরিচিত রাজধানীর মতিঝিলের সবকটি রাস্তা তলিয়ে গেছে। এমনকি ফুটপাতের ওপরও জমে গেছে হাঁটু পানি। গতকাল সকালের পানি  বিস্তারিত…